নতুন নিয়মে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করুন

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনপ্রিয় পাঠক, আপনি কি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করতে চাচ্ছেন? কিন্তু কিভাবে আবেদন করবেন সেটি বুঝতে পারছেন না? তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্যই। কারণ আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে আমরা নতুন নিয়মে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করবেন কিভাবে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। জানার জন্য অবশ্যই শেষ পর্যন্ত পড়ুন।
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়লে আপনি নতুন নিয়মে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন, কিভাবে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হয়, জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা, জন্ম নিবন্ধন ফরম কোথায় পাবেন এবং জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম ডাউনলোড কিভাবে করবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারি জানতে পারবেন।

পেজ সূচিপত্রঃ

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

নতুন নিয়মে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন এখন আপনি অনলাইন এর মাধ্যমে ঘরে বসে থেকেই করতে পারবেন। তবে এই কাজটি করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটি নিয়ম অনুসরণ করে কাজ করতে হবে। অনেকে আবেদন করার পুরাতন নিয়ম জানেন। কিন্তু পুরাতন নিয়ম অনুসারে কাজ করলে হবে না। আপনাকে নতুন নিয়ম অনুসারে কাজ করতে হবে। তাহলেই খুব সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন হয়ে যাবে। চলুন তাহলে কোন নিয়ম অনুসরণ করে আবেদন করবেন সেটা জেনে নেওয়া যাক।

নতুন নিয়মে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় ধাপগুলো নিম্নে তুলে ধরা হলো। এই ধাপ অনুসারেই আবেদন করতে হবে। সেই সকল ধাপগুলো হলো
  • BDRIS ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে
  • জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ প্রদান করে সঠিক তথ্য খুজে বের করুন
  • নিবন্ধনের কার্যালয় বাছাই করুন
  • সংশোধনকৃত তথ্যগুলো নির্বাচন করুন
  • সংশোধন করার তথ্য, বিষয় এবং কারণ উল্লেখ করতে হবে
  • বর্তমান ঠিকানা এবং স্থায়ী ঠিকানা দিন
  • তথ্য সংশোধনের জন্য উপযুক্ত প্রমাণপত্র দিন
  • জন্ম নিবন্ধনের আবেদনপত্রটি প্রিন্ট করে নিন
অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের আবেদন করতে হলে উপরের উল্লিখিত এই সকল ধাপগুলো অনুসরণ করতে হবে। আপনি যদি সঠিকভাবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের আবেদনের কাজ সম্পন্ন করতে চান তাহলে নিচের দেখানো সকল পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করুন।

স্টেপ-০১ঃ BDRIS ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে

প্রথমে আপনার কম্পিউটার থেকে যেকোন ব্রাউজারে গিয়ে সার্চ করুন BDRIS লিখে। তারপরে প্রথম ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। এরপরে উপরেই কিছু মেন্যু উপশান দেখতে পাবেন। সেখান থেকে "জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন" এই অপশানটিতে ক্লিক করুন। যেমনটি নিচের ছবিতে দেখানো হয়েছে।

স্টেপ-০২ঃ জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ প্রদান করে সঠিক তথ্য খুজে বের করুন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করার জন্য এরপরে আপনার কাছে থেকে সঠিক জন্ম নিবন্ধন খুজে পেতে ১৭ ডিজিটের আপনার জন্ম নিবন্ধের নাম্বার দিতে হবে। তার পরে আপনার জন্ম তারিখ দিতে হবে আপনার পূর্বে জন্ম নিবন্ধনের তারিখ অনুযায়ি। এই দুটি তথ্য বসানো হয়ে গেলে "অনুসন্ধান" বাটনে ক্লিক করতে হবে। তারপরেই আপনার জন্ম নিবন্ধনের তথ্যটি যাচাই করে দেখতে হবে।

যদি দেখতে পান যে আপনার জন্ম নিবন্ধনের নাম্বার ১৭ ডিজিটাল নেই তাহলে সে ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে সংশ্লিষ্ট অফিসে অথবা উপজেলা কার্যালয়ে গিয়ে সরাসরি যোগাযোগ করে তাদেরকে জানাতে হবে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করে দিতে। অনলাইনের কাজ সম্পন্ন করা হলে আপনার জন্ম নিবন্ধনের ১৭ ডিজিটাল একটি নাম্বার প্রদান করা হবে।
যখন আপনি এখানে এসে আপনার জন্ম নিবন্ধনের ১৭ ডিজিটের নাম্বার বসিয়ে "অনুসন্ধান" বাটনে ক্লিক করবেন তারপরে আপনার জন্ম নিবন্ধনের সনদ অনুযায়ী কিছু তথ্য দেখতে পাবেন। এই তথ্যগুলো দেখে জন্ম নিবন্ধনের সকল তথ্য বুঝে শুনে সবকিছু যদি ঠিক থাকে তাহলে "নির্বাচন করুন" এই বাটনে ক্লিক করতে হবে। তাহলে এটি কনফার্ম হয়ে যাবে।

স্টেপ-০৩ঃ নিবন্ধনের কার্যালয় বাছাই করুন

এই ধাপে এসে আপনাকে একটি নিবন্ধনের কার্যালয়ে বাছাই করতে হবে। এমন একটি নিবন্ধনের কার্যালয় আপনাকে বাছাই করতে হবে যে ইউনিয়ন পরিষদ অথবা পৌরসভার অধীনে আপনার জন্ম নিবন্ধন কে করেছেন। তা ঠিকানা এখানে উল্লেখ করতে হবে। এর সাথে সাথে এখান থেকে আপনাকে আপনার বিভাগ, জেলা, আপনার দেশ, আপনার উপজেলা অথবা ইউনিয়ন সিলেট করতে হবে। এই সকল তথ্যগুলো সিলেক্ট করা হয়ে গেলে পরবর্তি নামক একটি বাটন পাবেন। সেই "পরবর্তী" বাটনে ক্লিক করতে হবে।

স্টেপ-০৪ঃ সংশোধনকৃত তথ্যগুলো নির্বাচন করুন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন এর এই স্টেপে এসে আপনাকে জন্ম নিবন্ধনের সকল তথ্যগুলো যাচাই করে নিয়ে আপনি যেটিকে ঠিক করতে চান সেটি ফরমে সংযোজন করে সঠিক তথ্যটি লিখতে হবে। এভাবেই আপনার যতগুলো তথ্য সঠিক করতে চান সেই সকল তথ্যগুলো এখানে সংশোধন করে সিলেক্ট করে শুদ্ধ করে দিতে হবে। নিচের দেখানো ছবির অনুসারে।

স্টেপ-০৫ঃ সংশোধন করার তথ্য, বিষয় এবং কারণ উল্লেখ করতে হবে

নিম্নের ছবিতে দেখানো হয়েছে ৩ টি তথ্য সংশোধন করার জন্য। কারণ এখানে এই ৩ টি তথ্যই ভুল আছে। এটাই সঠিক করার জন্য আবেদন করা হয়েছে। তার পাশাপাশি এখানে আবেদনের কারণ হিসেবে ভুলগুলোও তার কারণ উল্লেখ করা হয়েছে। এর জন্য "ভুলভাবে লিপিবদ্ধ হয়েছে" এটাকে সিলেক্ট করতে হবে। যদি আপনার জন্ম নিবন্ধনের তারিখ ঠিক করতে চান তাহলে এখান থেকে ক্যালেন্ডার থেকে জন্ম তারিখ ঠিক করে নিন।

স্টেপ-০৬ঃ বর্তমান ঠিকানা এবং স্থায়ী ঠিকানা দিন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন এর উপরের সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করা হয়ে গেলে একটু নিচে নেমে গিয়েই আপনি দেখতে পাবেন আরো একটি ফর্ম। এখানে গিয়ে আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী আপনার জন্মস্থানের ঠিকানা, আপনার বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা আপনার উপজেলা ও জেলা সিলেক্ট করে দিতে হবে। যেমটি নিচের ছবিতে দেখতে পাচ্ছেন।

স্টেপ-০৭ঃ তথ্য সংশোধনের জন্য উপযুক্ত প্রমাণপত্র দিন

আপনার সকল তথ্য যদি সঠিকভাবে পূরণ করা হয়ে থাকে তাহলে সেই তথ্যের সত্যতা প্রমাণ করার জন্য অবশ্যই আপনাকে সেই সংক্রান্ত উপযুক্ত তথ্য সংযুক্ত করতে হবে। এক্ষেত্রে যিনি এই আবেদনের জন্য আবেদন করেছেন তাকে সিলেক্ট করতে হবে। যদি আপনি নিজে আবেদন করে থাকেন তাহলে "নিজ" সিলেক্ট করুন। অন্যথায় যদি আপনার পিতা-মাথা অথবা অন্যকেউ আবেদন করে থাকেন তাহলে সেটি সিলেক্ট করতে হবে

যদি এক্ষেত্রে সে জন আপনার আপন বাবা-মা না হন আইনগতভাবে অভিভাবক হন তাহলে সে ক্ষেত্রে অভিভাবক সিলেক্ট করে দিতে হবে। তবে যদি নিজের বাবা-মা ছাড়া অন্য কেউ জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আবেদন করে থাকেন তাহলে সে ক্ষেত্রে তার ভোটার আইডি কার্ডের নম্বর প্রদান করতে হবে।

এখানে সকল তথ্যগুলো দেওয়া হয়ে গেলে ডকুমেন্টস সংযোজন করার জন্য সবুজ যে বাটনটি রয়েছে সেখানে ক্লিক করে ডকুমেন্টস এর স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে। এছাড়াও আপনার মোবাইল দিয়ে তোলা ছবি আপলোড করতে পারবেন। তবে সেক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন ছবিগুলো যেন স্পষ্ট এবং ক্লিয়ার হয়। তার জন্য অবশ্যই আপনাকে যথেষ্ট আলোতে গিয়ে ছবি তুলতে হবে।

এমন ভাবে ছবি তুলতে হবে যেন ছবির লেখাগুলো স্পষ্ট ভাবে বোঝা যায়। এখানে সকল ডকুমেন্টস দেওয়া হয়ে গেলে পরবর্তীতে পেমেন্ট নামে একটি অপশন পাবেন। এখান থেকে আপনাকে সিলেক্ট করতে হবে "ফি আদায়"। এরপরে আপনি চেক করে দেখবেন আপনার সকল তথ্যগুলো সঠিক রয়েছে কিনা। যদি সকল তথ্যগুলো সঠিক থেকে থাকে তাহলে এখান থেকে আপনি আবেদনটি জমা দেওয়ার জন্য ''সাবমিট" বাটনে ক্লিক করুন।

স্টেপ-০৮ঃ জন্ম নিবন্ধনের আবেদনপত্রটি প্রিন্ট করে নিন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করে যখন আপনি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য আবেদনপত্রটি জমা দিবেন তখন সাথে সাথেই আপনি একটি এপ্লিকেশন আইডি কয়েকটি রেফারেন্স নাম্বার পাবেন। আপনাকে এই দুটি অবশ্যই সংগ্রহ করে রাখতে হবে। এর পরে আপনি একটি ফরম পাবেন সেটি ডাউনলোড করে নিয়ে প্রিন্ট করে রাখতে হবে। তারপর সেই প্রিন্টের কপি আপনি যদি ইউনিয়ন পর্যায়ের হন তাহলে ইউনিয়নে গিয়ে জমা দিবেন। অথবা যদি পৌরসভা পর্যায়ের হয় অথবা যদি সিটি কর্পোরেশনের পর্যায়ে হন তাহলে সেখানে গিয়ে জমা দিবেন।

তথ্যসূত্রঃ NIDBD

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করার পরেই প্রয়োজন পরবে এই জন্ম নিবন্ধন যাচাইয়ের। আর তার জন্য আপনি অনলাইনের মাধ্যমেই অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন। তবে তার জন্য আপনাকে কিছু স্টেপ অনুসরণ করতে হবে। তারপরেই আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন। কিভাবে যাচাই করবেন চলুন সেটি জেনে নেই।
  • অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার জন্য নিচের দেখানো ধাপগুলো অনুসরণ করুন।
  • প্রথমে everify.bdris.gov.bd এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।
  • এরপরে আপনার জন্ম নিবন্ধন কার্ডের নাম্বার দিন।
  • পরবর্তি ঘরে আপনার জন্ম তারিখ দিন YYYY-MM-DD ফরমেটে
  • এরপরেই নিচের ঘরে একটি ক্যাপচা কোড দেখতে পাবেন সেটি লিখে পূরণ করে দিন নিচের থাকা ঘরে।
  • সকল তথ্যগুলো সঠিকভাবে বসানো হয়ে গেলে "Search" বাটনে ক্লিক করুন।
তাহলেই আপনার অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা হয়ে যাবে। নিচের দেখানো ছবি অনুসরণ করুন।

জন্ম নিবন্ধন ফরম। জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম ডাউনলোড

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করতে গেলে অবশ্যই একটি ফর্মের প্রয়োজন হবে। আর এই জন্যই অনেকেই অনেক খোঁজাখুঁজির পরেও সেই ফর্ম খুঁজে পান না। আপনিও যদি এমন জন্ম নিবন্ধন ফরম খুঁজে থাকেন ডাউনলোড করার জন্য, তাহলে এখান থেকেই আপনি সেটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। কিভাবে করবেন চলুন দেখে নেই।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম ডাউনলোড করার জন্য নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করুন। সেখানে গেলেই আপনি একটি PDF ফর্ম পেয়ে যাবেন। সেটি ডাউনলোড করে নিয়ে আপনার কাজ করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা (FAQ)

প্রশ্নঃ অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই কিভাবে করব?
উত্তরঃ অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার জন্য আপনাকে everify.bdris.gov.bd এই ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করতে হবে। তারপরে সেখানে গিয়ে প্রথমে জন্ম নিবন্ধন নাম্বার তারপরে জন্ম তারিখ এবং তারপরেই ক্যাপচা পূরণ করে সার্চ করলেই আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন।

প্রশ্নঃ জন্ম নিবন্ধন কিভাবে ডাউনলোড করব?
উত্তরঃ everify.bdris.gov.bd এই ওয়েবসাইটের মধ্যে গিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিয়ে তারপরে ডাউনলোড ও করে নিতে পারবেন।

প্রশ্নঃ জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগবে?
উত্তরঃ জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে এখন বর্তমান সময়ে ২৩০ টাকার মতো লাগে। এখানে সরকারি ফি রয়েছে ৫০ টাকা এবং তার সাথে বাড়তি কিছু খরচ রয়েছে। এই নিয়ে সর্বোমোট ২৩০ টাকা থেকে ২৫০ টাকা খরচ হয়।

প্রশ্নঃ জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আছে কিনা কিভাবে বুঝবো?
উত্তরঃ জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আছে কিনা এটা বুঝার জন্য আপনি everify.bdris.gov.bd এই ওয়েবসাইটে গিয়ে চেক করে দেখতে পারেন।

লেখকের মন্তব্য। জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

আজকে আমাদের এই আর্টিকেলে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন করবেন কিভাবে সেটি বিস্তারিত তুলে ধরেছি। আশা করছি আপনি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ে এই বিষয়ে এখন জানতে পেরেছেন। তার জন্য আপনি এখন বাড়িতে বসে থেকেই জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। যদি আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। এমন আরো আর্টিকেল প্রতিদিন পড়ার জন্য আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

পেপারস্পট২৪ এর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url