কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে - হাতের চামড়া উঠার ক্রিম

সকালে খালি পেটে ছোলা খাওয়ার নিয়মপ্রিয় পাঠক, কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে সম্পর্কে আপনি কি জানতে চাচ্ছেন। অথবা আপনি কি হাতের চামড়া উঠার ক্রিম এই বিষয় সম্পর্কে জানার জন্য আগ্রহি। তাহলে আপনি এখন একদম সঠিক জায়গাতেই রয়েছেন। কারণ আজকের এই আর্টিকেলটি এই বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে
শীতকালে হাতের চামড়া উঠা স্বাভাবিক হলেও যদি অন্য সময়েও হাতের চামড়া উঠে থাকে তাহলে তা মোটেও স্বাভাবিক নয়। তাই তার জন্য সুষ্টু পদক্ষেপ নিতে হবে।

পেজ সূচিপত্রঃ কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে - হাতের চামড়া উঠার ক্রিম

ভূমিকা। কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে

সারাবছর ধরে হাত পায়ের চামড়া উঠে থাকলে এটি একটি রোগ। এই রোগটিকে ডাক্তারদের চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় কেরাটোলাইসিস এক্সফোলিয়াটিচা বলে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় যদি সারাবছর ধরে হাত কিংবা পায়ের চামড়া উঠে তার জন্য প্রথম কারণ হিসেবে ধরা হয় বংশগত বা জিনগত কারণ।

আপনি যদি আজকের এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকেন তাহলে আপনি হাতের চামড়া উঠে কেন, হাতের আঙ্গুলের চামড়া উঠে কেন, হাতের চামড়া উঠা বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে জানতে পারবেন। তাহলে চলুন এখন বেশি দেরি না করে বিস্তারিত আলোচনায় যাওয়া যাক।

কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে

কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে? আমাদের শররীরের প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন ভিটামিনের প্রয়োজন দেখা দেয়। আর এই ভিটামিনের ঘাটতি হলেই আমাদের শরীরে বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়। আপনি যদি লক্ষ্য করে থাকেন আপনার হাত অথবা পায়ের চামড়া শুধু শীতকাল ছাড়াও সারাবছর ধরে উঠতেছে তাহলে বুঝবেন আপনার শরীরে ভিটামিনের অভাব রয়েছে। তাহলে চলুন এখম আমরা কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে সেই সম্পর্কে জেনে নেই।

আমাদের শরীরের হাত পায়ের চামড়া উঠে যায় সাধারণত ভিটামিন - ডি এর অভাবে। আমাদের হাত পায়ের সহ সম্পূর্ণ শরীরের চামড়ার যত্নের জন্য ভিটামিন - ডি এর প্রয়োজনীয়তা রয়েছে অনেক। এই ভিটামিন - ডি আমাদের শরীরের হাড় ও দাঁত মজবুত রাখতে অনেক সহায়তা করে।
চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা জানান যে, যদি আপনার শরীরের ভিটামিন - ডি এর অভাব হয় তাহলে এটি আপনি বুঝতে পারবেন আপনার হাতের চামড়া উঠা দেখে। আমাদের শরীরের ত্বককে ভালো রাখতে এই ভিটামিন - ডি অনেক বড় ভূমিকা রাখে। আপনি আপনার শরীরের যদি এমন অনুভব করেন তাহলে আপনি চাইলে আপনার রক্ত পরিক্ষা করতে পারেন।

রক্ত পরিক্ষার মাধ্যমেও ভিটামি - ডি এর অভাব শনাক্ত করা যায়। মূলত ভিটামিন - ডি এর অভাবেই হাতের চামড়া উঠে থাকে। শুধুমাত্র যে ভিটামিন - ডি এর কারণেই হাতের চামড়া উঠতে পারে ব্যাপার টা এমন নয়। আরো কিছু ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠতে পারে। যেমনঃ
  • ভিটামিন - সি
  • ভিটামিন - ই এবং
  • জিংক
শুধু মাত্র ভিটামিন - ডি ছারাও এই সকল ভিটামিনের অভাব হলে আমাদের হাতের চামড়া উঠতে পারে। আশা করছি আপনি উক্ত বিষয় সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন।

হাতের চামড়া উঠার ক্রিম

কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে এবং ইতিপূর্বে আমরা হাতের চামড়া উঠার সকল কারণ জেনেছি। আর তার সাথে এটাও জেনেছি যে কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে হাতের চামড়া উঠা রোধ করা যায়। এখন আমরা সকলেই হাতের চামড়া উঠার ক্রিম সম্পর্কে জানতে পারবো। যেগুলো ব্যাবহার করে আপনি অনেক উপকৃত হতে পারেন।

হাতের চামরা উঠা বন্ধ করার জন্য দুইটি ক্রিম অনেক বেশি ব্যাবহার হয়। আর অনেকেই এই ক্রিম ব্যাবহার করে অনেকেই অনেক উপকৃত হয়েছেন। সেই দুইটি ক্রিমের নাম হলোঃ
  • Topical creams
  • Clopidox Cream 1%
Topical creams: আপনি যদি ক্রিমটি সঠিক নিয়মে ব্যাবহার করতে পারেন তাহলে আপনার হাত ও পায়ের চামড়া উঠা থেকে খুব সহজেই রেহাই পেয়ে যাবেন। আপনি চাইলে এই ক্রিমটি বাজারের সকল ঔষধ ফার্মেসি থেকে ক্রয় করতে পারবেন।এই ক্রিমটির মুল্য মাত্র ৭০ টাকার মতো।

এই ক্রিমটি আপনাকে প্রতিদিন ২ বার করে টানা ১ মাস ব্যাবহার করতে হবে। এই ক্রিম হাত ও পায়ের তালুতে ব্যাবহারে পরেও যদি আপনার চামড়া বন্ধ না হয় তাহলে খুব দ্রুতই একজন ভালো ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

Clopidox Cream 1%: এই ক্রিমটি ব্যাবহার করেও আপনি অনেক উপকার পাবেন। আপনি এই ক্রিম বাজারের যেকোন ফার্মেসিতে পেয়ে যাবেন। এই ক্রিমটি মূল্য হচ্ছে মাত্র ১১০ টাকা। আপনি নিয়ম করে প্রতিদিন দিনে দুইবার করে টানা একমাস ব্যাবহার করুন।

এই দুইটি ক্রিম একসাথেই কখনোই ব্যাবহার করবেন না। আপনি যদি প্রথমটি আগে ব্যাবহার করেন তাহলে দ্বিতীয়টি তার কমপক্ষে একঘন্টা পরে লাগাবেন। আর যদি আপনি দেখেই এই দুই ক্রিম ব্যাবহারের পরেও আপনার হাত পায়ের চামড়া উঠা কোনভাবেই বন্ধ হচ্ছে না। তাহলে আপনি একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহন করুন।

হাতের চামড়া উঠে কেন

কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে এই বিষয়ে জানার পরেও যদি আপনি ক্লিয়ার না হন তাহলে, হাতের চামড়া উঠে কেন এই বিষয়ে আপনার অবশ্যই জানা উচিত। হাতের পায়ের চামড়া উঠবে এটি স্বাভাবিক একটি বিষয়। কিন্তু আপনার হাতে চামড়া সারা বছর ধরে উঠতে থাকে তাহলে এটি মোটেও স্বাভাবিক বিষয় নয়। এটি একটি রোগ বলে গণ্য করা হয়। আর এই রোগটিকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় কেরাটোলাইসিস এক্সফোলিয়াটিচা বলা হয়।
আর এই হাতের চামড়া উঠার কারণে হাত দেখতে খারাপ লাগে। কোন কিছু স্পর্শ করতে খারাপ লাগে। এই হাত পায়ের চামড়া উঠার সবথেকে বড় কারণ হলো হাতে চত্রাকের আক্রমণ। যদি আপনার শরীরে প্রচুর পরিমাণে চত্রাকের আক্রমণ হয়ে থাকে তাহলে হাত এবং পায়ের চামরা উঠে যাবে। আবার হাত পায়ের চামড়া ভিটামিন - সি এর অভাবেও উঠে যেতে পারে।

এছাড়াও বংশগত কারণেও হাত পায়ের চামড়া উঠে যেতে পারে। যার কারণে কিছু কিছু মানুষের হাত পায়ের চামড়া প্রতিবছর একটি নির্দিষ্ট সময়ে উঠতে দেখা যায়। যদি বংশগত কারণে হাতের চামড়া উঠতে থাকে তাহলে এর জন্য কোন চিকিৎসা কাজে আসে না। আবার চুল্কানি অথবা এলার্জির কারণে হাতে চামড়া উঠতে পারে।

শীতকালে হাতের চামড়া উঠে কেনো

কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে এই সম্পর্কে জেনে শীতকালে হাতের চামড়া উঠে কেনো এই সম্পর্কে অনেকেই জানতে চান। শীতের সময়টাতে প্রায় সকলেরই হাতের চামড়া উঠতে থাকে। আর এই চামড়া ওঠার মধ্য দিয়েই আমাদের হাতের চামড়া পরিবর্তন হতে থাকে। প্রতিবছর একটি নির্দিষ্ট সময়ে আমাদের সাথে পুরাতন চামড়া উঠে গিয়ে আবার নতুন চামড়া হয়।

শীতের সময় পরিবেশের বাতাস অনেক শুষ্ক থাকে। যার প্রভাব আমাদের শরীরের ওপর পড়ে। আর এই সময়টাতে সকল নারী পুরুষ সকলেরই হাত, ঠোঁট ফাটে এবং চামড়া পরিবর্তন হয়। হাত ও পায়ের চামড়া উঠে যাওয়ার কারণে ত্বক অনেক খসখসে হয়ে যায় আর তার জন্য অনেক জ্বালাও করতে থাকে।

আর এই হাত পায়ের চামড়া ফেটে উঠে যাওয়ার সবথেকে বড় কারণ হিসেবে বলা হয় ছত্রাকের আক্রমণ। শরীরে যদি প্রচুর পরিমাণে ছত্রাকের আক্রমণ হয় তাহলে হাত এবং পায়ার চামড়া উঠতে থাকে। আর এই ছাড়াও ভিটামিন - বি, ভিটামিন - ডি এর অভাবেও হাতের চামড়া উঠতে পারে।

হাতের চামড়া খসখসের জন্য যত্ন

আপনারা যারা হাত ঘন ঘন ধৌত করেন অথবা এমন যারা রয়েছেন যাদের এমনিতেই শীত আসলে হাতের চামড়া উঠে, তারা চাইলে নিচের দেখানো ধাপগুলি অনুসরণ করতে পারেন। আশা করছি এটি আপনার হাতের চামড়া উঠা থেকে রোধ করবে। তাহলে চলুন এখন সেগুলি জেনে নেওয়া যাক।

ঘন ঘন হাত ধৌত করার ফলে হাতে থাকা প্রাকৃতিক তেল চলে। আর তাই হাতের তালু খসখসে হয়ে যায়। যার জন্য আপনি কিছু ভালো পণ্য ব্যাবহার করার মাধ্যমে উপকৃত হতে পারেন। আপনি যদি অনেক সুগন্ধযুক্ত হ্যান্ড ওয়াশ ব্যাবহার করে থাকেন তাহলে এই সাবান হাতের অবস্থা অনেক খারাপ করে দিতে পারে।

তাই সকলকে বিশেষ ভাবে জানাবো আপনারা হাত ধৌত করার সময় সচেতন হন। আর বেশি সুগন্ধযুক্ত সাবান বা হ্যান্ডওয়াশ ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকুন। আপনি সুগন্ধ সাবানের বিপরীতে নরওয়েজিয়ান ফর্মুলা হ্যান্ড ক্রিম, সেরাভে হ্যান্ড ক্রিম, লা রোচে পোসে সিক্যাপ্লাস্ট বাউমে বি-পাইভ হ্যান্ড ক্রিম ব্যাবহার করতে পারেন।

হাতের আঙ্গুলের চামড়া উঠে কেন

কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে? আপনার হাত পায়ের চামড়া বিভিন্ন কারণে উঠতে পারে। এর প্রথম কারণ হিসেবে চিকিৎসা বিজ্ঞাণী গণ একে বংশগত রোগ বলে উল্লেখ করেছেন। তাই আপনার হাতের চামড়া উঠার প্রথম কারণ হিসেবে বংশগত বা জিনগত রোগকে দায়ি করা হয়। আবার আপনার হাতের চামড়া উঠতে পারে যদি আপনি আপনার ত্বকের যথার্থ পরিচর্যা না করেন।

আবার পুষ্টিহিনতার কারণেও হাতের চামড়া উঠতে পারে। তাই এই সকল সমস্যা এড়াতে আপনি যদি সকল কাজের ফাকে একটু সময় নিয়ে ত্বকের যত্ন করেন অর্থাৎ হাতের যত্ন নেন তাহলে আপনার হাতের চামড়া উঠার থেকে রেহাই পেতে পারেন। তাহলে চলুন এখন কোন সকল উপাদান দিয়ে হাতের যত্ন নিবেন সেটা জেনে নেওয়া যাক।
  • তিলের তেল
  • সয়াবিনের গুঁড়া
  • গ্লিসারিন এবং গোলাপজল
  • হাত সবসময় ভেজা রাখা থেকে বিড়ত থাকবেন।

হাতের চামড়া উঠা বন্ধ করার উপায়

কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে এটি জানার পরে অবশ্যই আমাদের হাতের চামড়া উঠা বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে জানা উচিত। আপনার যদি প্রতিনিয়ত হাতের চামড়া উঠে থাকে তাহলে আপনি প্রথমে কিছু ঘরোয়া উপায় ব্যাবহার করুন। তাতে কাজ না হলে আপনি বিভিন্ন ক্রিম অথবা ডাক্তারের পরেমর্শ নিতে পারেন। এখন হাতের চামড়া উঠা বন্ধ করার ঘরোয়া উপায় উপায় সম্পর্কে জানবো। আর তার পরেই আমরা কোন ক্রিম ব্যাবহার করতে হবে সেটা জানবো। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক।
গুঁড়ো দুধ, চিনি এবং অলিভ অয়েল ব্যাবহারঃ প্রথমে আপনাকে এই তিনটি উপাদান একসাথে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিতে হবে। তার পর এই উপাদানটি আপনার হাতে যেই সকল জায়গাতে চামড়া উঠছে সেই সকল জায়গাতে ভালো করে লাগান। লাগারো প্রায় ২০ মিনিট পরে হালকা গরম পানি দিয়ে হাত ধুয়ে নিয়ে সামান্য পরিমাণে নারিকেল তেল মেখে নিবেন।

এই সকল উপাদান যদি আপনি প্রতি সপ্তাহে একবার করে কাজে লাগান লাগান তাহলে আপনার হাতের ত্বকের চামড়া নরম হবে। যার ফলে হাতের চামড়া আর উঠবে না।

গ্লিসারিন, তিলের তেল এবং গোলাপজল ব্যাবহারঃ এটি ব্যাবহার করার জন্য প্রথমে আপনাকে এই তিনটি উপাদান সমানভাবে নিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। তারপরে এটি প্রতিদিন আপনার হাতের চামড়া উঠা জায়গাতে লাগাতে হবে। আপনি যদি হাতের নাগালে তিলের তেল না পান তাহলে আপনি অলিভ ওয়েল ও ব্যাবহার করতে পারেন।

আপনার যদি পায়ের চামড়া উঠতে থাকে তাহলে আপনি গ্লিসারিন, মধু, ঘৃতকুমারী ও লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে নিয়ে তারপর আপনার পায়ে ব্যাবহার করুন। বিশেষ করে রাতে ঘুমাতে যাবার প্রায় ৩০ মিনিট পূর্বে লাগান। তার পর আপনার যদি সম্ভব হয় তাহলে আপনি রাতে পায়ে পাতলা মোজা পরে ঘুমান।

সয়াবিনের গুঁড়া ব্যাবহারঃ সয়াবিনের গুঁড়া যদি আপনার হাত অথবা পায়ের চামড়া উঠতে থাকে তাহলে সেটা বন্ধের জন্য অনেক উপকারি। সয়াবিনের গুঁড়া ব্যাবহার করার জন্য প্রথমে সয়াবিন কড়াইয়ে করে হালকা আচেঁ কিছুক্ষণ গরম করে নিয়ে তারপর তা গুড়ো করে নিন। আপনি চাইলে এই গুড়ো দিয়ে হাত এবং পা দুটোই ধুতে পারবেন।

এই সয়াবিন গুড়া হাত পায়ের চামড়া পরিষ্কারের পাশাপাশি ময়েশ্চারাইজারেও অনেক বড় ভূমিকা রাখে। আর হ্যা রাতে ঘুমানোর পূর্বে গ্লিসারিন ব্যাবহার করে তার পর ঘুমাবেন। তাহলে এটি ও আপনার হাত এবং পায়ের চামড়া উঠাকে প্রতিরোধ করবে।

কাঁচা দুধ এবং গরম জল ব্যাবহারঃ কাঁচা দুধ ও গরম জল ব্যাবহার করার জন্য প্রথমে কিছু সামান্য পরিমাণ কাঁচা দুধ নিতে হবে। তারপর তাতে কিছুটা হালকা পরিমাণ কুসুম কুসুম গরম পানি নিন। এই দুটী উপাদান একসাথে মিশিয়ে নিয়ে প্রতিদিন হাতের অথবা পায়ের সেখানে চামড়া উঠচে সেই সেই জায়গাতে তুলো দিয়ে ভিজিয়ে ভিজিয়ে লাগান।

লবণ এবং শ্যাম্পুর ব্যাবহারঃ লবণ ও শ্যাম্পু ব্যাবহার করার জন্য কিছুটা হালকা গরম পানিতে কিছু পরিমাণে লবণ আধা চামচ শ্যাম্পু মিশিয়ে নিন। তারপরে সেই পানিতে ১০ - ১৫ মিনিট হাত - পা চুবিয়ে রেখে দিন। এই কিছু সময় শেষে আপনি আপনার হাত পা ব্রাশ দিয়ে ভালো করে ঘষবেন। তাতে করে আপনার হাত পায়ের মরা চামড়া উঠে যাবে।

হাতের চামড়া উঠা সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা (FAQ)

প্রশ্নঃ হাতের চামড়া উঠলে কি করা উচিত?
উত্তরঃ হাতের চামড়া উঠতে থাকলে আপনাকে ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যাবহার করা উচিত। তার জন্য আপনাকে প্রতিদিন কিছুটা গুড়ো দুধ, চিনি আর তার সাথে অলিভ ওয়েল মিশিয়ে নিয়ে হাতের যেসকল জায়গা থেকে চামড়া উঠছে সেই সকল জায়গাতে লাগাতে হবে।

প্রশ্নঃ হাতের তালুর খোসা ছাড়ে কেন?
উত্তরঃ যখন কোন ব্যাক্তি অতিরিক্ত পরিমাণে হাত ভিজায় অথবা অন্য কোন কাজ করে তখন হাতের খোসা ছাড়তে পারে।

প্রশ্নঃ শীতকালে হাত এবং পায়ের চামড়া উঠে কেন?
উত্তরঃ শীতের সময়ে বাতাসের আদ্রতা অনেক কম থাকে। যার ফলে চামড়া শুকিয়ে যায়। আর তাই এই কারণের হাত এবং পায়ের শুষ্ক চামড়া উঠে যায়।

প্রশ্নঃ হাতের চামড়া উঠার ক্রিমের নাম কি?
উত্তরঃ হাতের চামড়া উঠার ক্রিমের নাম হলো Topical creams; Clopidox Cream 1%

লেখকের মন্তব্য। কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে

আজকে আমাদের এই আর্টিকেলের প্রধান আলোচনার বিষয় ছিলো কোন ভিটামিনের অভাবে হাতের চামড়া উঠে সেই সম্পর্কে। আশা করছি আপনি এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। এই রকম আরো তথ্যবহুল আর্টিকেল প্রতিদিন নিয়োমিত পড়ার জন্য আমাদের সাথেই থাকুন। আর সকল পোস্টের সবার আগে আপডেট পেতে আমাদের গুগল নিউজ ফলো করে রাখতে পারেন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

পেপারস্পট২৪ এর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url