মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ২ মিনিটেই

প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক লোন অনলাইন আবেদনপ্রিয় পাঠক, আপনি কি মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে করতে চাচ্ছেন? কিন্তু কিভাবে করবেন সেটি বুঝে উঠতে পারছেন না? তাহলে এই আর্টিকেলটি শুধুমাত্র আপনার জন্যই। কেননা আজকের এই আর্টিকেলে আমরা মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে কিভাবে করবেন সেই সকল প্রসেস ধাপে ধাপে আপনাকে শিখিয়ে দিবো। তাই আপনি যদি এই সম্পর্কে জানতে চান তাহলে অবশ্যই শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে
আপনি যদি আজকের এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকেন তাহলে মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক করবেন যেভাবে, ভিসা নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করার নিয়ম, ভিসা নাম্বার দিয়ে ওমান ভিসা চেক করার নিয়ম এবং মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চেক করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

পেজ সূচিপত্রঃ

মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে

আপনি বাড়িতে বসে থেকেই খুব সহজেই মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়েই করতে পারবেন। তবে তার জন্য আপনাকে একটি নিয়ম অনুসরণ চেক করতে হবে। আর এটির জন্য আপনার দুটি জিনিস লাগবে। প্রথমটি হলো একটি স্মার্ট ডিভাইস ( এন্ড্রয়েড মোবাইল, কম্পিউটার) এবং দ্বিতীয়টি হলো ইন্টারনেট কানেকশান। যদি আপনার কাছে এই দুটি থেকে থাকে তাহলে চলুন কিভাবে আপনি ভিসা চেক করবেন সেটি জেনে নেওয়া যাক।

আপনি যদি মালয়েশিয়ার ভিসা চেক করতে চান তাহলে আপনি মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইট ব্যবহার করার মাধ্যমে শুধুমাত্র পাসপোর্ট নাম্বার দিয়েই আপনার ভিসা চেক করতে পারবেন। আর এ জন্য আপনাকে সবার প্রথমে মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশনের অফিসিয়াল যে ওয়েবসাইট রয়েছে সে ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে। তারপরে সেখানে গিয়ে যদি আপনি সকল তথ্যগুলো সঠিকভাবে দিয়ে দেন তাহলে আপনার মালয়েশিয়ার ভিসা চেক করে নিতে পারবেন।

মালয়েশিয়ার ভিসা চেক করতে পারবেন শুধুমাত্র পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে কিভাবে সেই সকল প্রসেস আপনাদের সুবিধার্থে নিম্নে ধাপে ধাপে তুলে ধরা হলো। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক।

ধাপ-০১ঃ প্রথমে আপনাকে মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে। তার জন্য আপনি এখানে ক্লিক করুন। তাহলেই আপনি নিম্নের ছবির মতো একটি ওয়েবসাইট দেখতে পেয়ে যাবেন।
ধাপ-০২ঃ যখন আপনি এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন তখন দেখবেন আপনার সামনে এমন কিছু অপশান রয়েছে। এখান থেকে প্রথমে আপনাকে No Passport এর ঘরে আপনার পাসপোর্ট নাম্বার দিতে হবে। এরপরে Warganegara এই ঘরে এসে আপনাকে আপনার দেশ সিলেক্ট করতে হবে। যেহেতু আমরা বাংলাদেশি তাই আমরা বাংলাদেশ সিলেক্ট করবো।

ধাপ-০৩ঃ আপনি যখন এই তথ্যগুলো সঠিকভাবে পূরণ করে দিবেন, তারপরেই আপনাকে Carian এই লিখার ওপরে ক্লিক করতে হবে। তাহলেই আপনার সেই ভিসার সকল যাবতীয় তথ্য এখানে নিচেই দেখতে পাবেন।

এই ওয়েবসাইটের মধ্যে এসে যখন আপনার পাসপোর্ট নাম্বার এবং আপনার জাতীয়তা দেওয়ার পরে আপনি যখন সার্চ করবেন তারপরে যদি ফলাফলে আপনার নাম এবং আপনার জন্ম তারিখ সঠিকভাবে দেখতে পান তাহলে বুঝতে পারবেন আপনার ভিসাটি একটি বৈধ ভিসা। এছাড়াও যারা মালয়েশিয়ার কোম্পানির ভিসার জন্য আবেদন করেছেন তারা চাইলে এখান থেকে কলিং ভিসাও দেখতে করে নিতে পারবেন।

মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক করবেন যেভাবে

আমরা সকলেই ইতিপূর্বে মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে কিভাবে করতে হয় সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছি। এখন আমরা সকলেই মালয়েশিয়া ই ভিসা চেক কিভাবে করতে হয় সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানবো। আপনাদের মধ্যে এমন অনেকে রয়েছেন যারা মালয়েশিয়ার ই ভিসার জন্য আবেদন করে থাকেন। আর তাদের জন্য এটি চেক করে নেওয়া অনেক জরুরি কাজ। তাই চলুন আপনার মালয়েশিয়ার ভিসা কিভাবে চেক করবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

স্টেপ-০১ঃ আপনি যদি মালয়েশিয়ার ই ভিসা চেক করতে চান তাহলে সবার প্রথমে আপনাকে Malaysia e-visa Status এই ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করতে হবে। তার জন্য আপনি এখানে ক্লিক করে প্রবেশ করলেই নিম্নের দেখানো মতো একটি পেজ দেখতে পাবেন।
স্টেপ-০২ঃ এরপর আপনাকে এই ওয়েবসাইটের মধ্যে এসে প্রথমে আপনার পাসপোর্ট নাম্বার এবং পরবর্তীতে আপনার স্টিকার নাম্বারটি বসাতে হবে। যেটি আপনি অনলাইনে ভিসার আবেদন করার পরে পেয়েছিলেন। আপনার এই স্টিকার নাম্বার খুঁজে পাওয়ার সহজ একটি মাধ্যম হলো এই স্টিকার নাম্বারে শুরু হয় EV দিয়ে।

স্টেপ-০৩ঃ এরপরে আপনাকে নিচের ক্যাপচা কোডটি পূরণ করতে হবে। এইখানে ছবিতে যে সকল অক্ষর গুলো লেখা থাকবে সেই অক্ষরগুলো নিচের দেওয়া বক্সে আপনাকে লিখতে হবে। যদি আপনি লেখাগুলো বুঝে উঠতে না পারেন তাহলে আপনি রিফ্রেশ করে নিতে পারেন। তাহলে পরবর্তীতে আবার একটি নতুন ক্যাপচা আসবে। সেটি দেখে বুঝে পূরণ করে দিন।

স্টেপ-০৪ঃ ক্যাপচা কোড বসানোর কাজ শেষ হয়ে গেলে এরপরের নিচেই "I have obtained my eVISA" এই লেখা দেখতে পাবেন। আর এই লেখার বামে একটি ছোট্ট ঘর দেখতে পাবেন। সেই ছোট্ট ঘরে ক্লিক করে টিক চিহ্ন দিয়ে দিতে হবে।

স্টেপ-০৫ঃ সকল তথ্যগুলো যদি সঠিকভাবে পূরণ করা হয়ে থাকে তাহলে আপনি Check বাটনে ক্লিক করলেই আপনার ই ভিসা সম্পর্কিত সকল তথ্যগুলো নিজে দেখতে পাবেন।
আপনি যখন মালেশিয়ার ভিসার জন্য আবেদন করেছিলেন তখন যদি কোন দালাল অথবা কোন এজেন্সির কাছে থেকে আপনি ভিসা নিয়ে থাকেন তাহলে সবার প্রথমে আপনার কাজ হবে আপনি যখন এই হাতে পাবেন তখন সাথে সাথেই অনলাইনে গিয়ে চেক করে নেবেন। তাহলে আপনি সেখান থেকে নিশ্চিত হতে পারবেন আপনার ভিসা আসল নাকি নকল।

যদি আপনার ভিসা আসল হয়ে থাকে তাহলে আপনি যখন ভিসা চেক করবেন তারপরে আপনার সম্পর্কিত সকল যাবতীয় তথ্য দেখতে পাবেন। সেখানে দেখতে পাবেন আপনার নাম, আপনার ভিসা কোন ধরনের, আপনার ভিসার মেয়াদ কতদিন রয়েছে এবং কোন কোম্পানির ভিসা আপনাকে দেওয়া হয়েছে সকল তথ্যগুলো এখানে দেখতে পাবেন।

আর যদি আপনার ভিসা কোন ক্ষেত্রে জাল অথবা ফেক হয়ে থাকে তাহলে আপনার সেই ভিসার বিষয়ে কোনো প্রকারের information দেখতে পাবেন না। তাহলে আপনি বুঝে নিতে পারবেন আপনার ভিসাটি আসল নয়। আপনাকে যেই ভিসা দেওয়া হয়েছে সেটি আসলে নকল। তাহলে আপনি এর বিপরীতে যথাযোগ্য ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

ভিসা নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করার নিয়ম

আপনি ইতিপূর্বে মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে যেভাবে করেছিলেন ঠিক তেমন ভাবেই আপনি ঘরে বসে থেকেই ভিসা নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করতে পারবেন। তাবে তার জন্য আপনাকে কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হবে। আপনি যদি না জেনে থাকেন আপনার ভিসার নাম্বার ব্যাবহার করে আপনি কিভাবে আপনার ভিসা চেক করবেন তাহলে সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। আশা করছি আপনি সম্পূর্ণ বুঝতে পারবেন।

আপনি যদি আপনার ভিসার নাম্বার দিয়ে আপনার ভিসা চেক করতে চান তাহলে তার জন্য আপনাকে আপনি যে কাঙ্খিত দেশে যাচ্ছেন সেই দেশের ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইটে যেতে হবে। তারপরে সেখানে গেলেই দেখতে পাবেন ভিসা চেক করার জন্য একটি আলাদা লিংক রয়েছে। আপনি যখন এই লিঙ্কে যাবেন তখন সেখানে গিয়ে আপনি যে দেশে যেতে চাচ্ছেন সেই দেশের নাম তারপরে আপনার ভিসার নাম্বার এবং এরপরে ভিসার ধরন ও অ্যাপ্লিকেশন আইডি দিয়ে সার্চ দিতে হবে।
তাহলে আপনি সেখানে আপনার সেই বিষয় সম্পর্কিত সকল ধরনের যাবতীয় তথ্য দেখতে পাবেন। আপনি যে দেশের ভিসা চেক করতে চাচ্ছেন সেই দেশের ভিসা চেক করতে গুগলে গিয়ে সার্চ করবেন। তাহলে সবার প্রথমে ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন। সার্চ করার নিয়ম যেমন Saudi Visa Check

এছাড়াও আপনার কাছে যদি এভাবে চেক করা জটিল মনে হয় তাহলে আপনি আপনার শুধুমাত্র পাসপোর্টের নাম্বার দিয়ে আপনার ভিসা চেক করতে পারবেন। কিভাবে পাসপোর্ট এর নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করতে হয় সেটি আমরা সবার প্রথমেই আলোচনা করেছি। আপনি যদি সেই অন্তত স্কিপ করে আসেন তাহলে অবশ্যই সে অংশটুকু করে নিবেন। আশা করছি সেখান থেকে আপনি বিস্তারিত জানতে পেরে যাবেন।

ভিসা নাম্বার দিয়ে ওমান ভিসা চেক করার নিয়ম

মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে যেভাবে করেছিলেন আপনি চাইলে ঠিক তেমন ভাবেই ওমানের ভিসাও চেক করে নিতে পারবেন। আপনারা যারা ওমান যাচ্ছেন কাজের জন্য তারা যদি কাজের ভিসা হাতে পেয়ে থাকেন তাহলে আপনি সেই ভিসার নাম্বার ব্যবহার করে খুব সহজেই আপনার ভিসা চেক করে নিতে পারবেন।

সেখান থেকে আপনার ভিসা সম্পর্কিত সকল ধরনের যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন। এছাড়াও বুঝে উঠতে পারবেন আপনার ভিসা আসল নাকি নকল। আপনি যদি ওমানের ভিসা চেক করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমেই মোবাইল ফোন থেকে অথবা কম্পিউটার থেকে যে কোন একটি বাজার ওপেন করে নিয়ে তার বক্সে গিয়ে লিখতে হবে evisa.rop.gov.om তাহলে সবার প্রথমে একটি ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন। সেটা তো প্রবেশ করুন।

এই ওয়েবসাইটের মধ্যে এসে আপনাকে সবার প্রথমে ভিসার অ্যাপ্লিকেশন নাম্বার এরপরে পাসপোর্ট নাম্বার এবং আপনি কোন দেশে থেকে ভিসা চেক করতে যাচ্ছেন (বাংলাদেশ) সেটি লিখতে হবে। তারপরে নিচে একটি ক্যাপচার কোডের অপশন পেয়ে যাবেন। সেই ক্যাপ্টা করে দেওয়া ছবি আপনাকে নিচের ঘরে গিয়ে লিখতে হবে।

সকল তথ্যগুলো সঠিকভাবে পূরণ করা হয়ে গেলে আপনি যখন Search অপশনে ক্লিক করবেন তখন আপনার সেই ভিসা সম্পর্কিত সকল ধরনের যাবতীয় তথ্য নেমে দেখতে পাবেন। এখন যদি আপনার ভিসা অনুমোদন করা হয় তাহলে আপনি সেই ভিসার স্ট্যাটাস Approved দেখতে পাবেন।
এছাড়াও এখানে এই ওয়েবসাইটের ডানপাশে Payment Receipt নামের একটি অপশান পাবেন। সেখানে ক্লিক করলেই আপনার ভিসা সম্পর্কিত একটি PDF ফাইল ডাউনলোড হয়ে যাবে। সেখান থেকে আপনার ভিসা সম্পর্কিত সকল ধরণের যাবতীয় তথ্য দেখতে পাবেন। এখান থেকে আপনার ভিসা সম্পর্কিত সকল ধরণের তথ্য এভাবেই চেক করে নিতে পারবেন।

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চেক করার নিয়ম

আমরা সকলেই এখন মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে কিভাবে করতে হয় সেই সম্পর্কে জানি। এখন অনেকেই মালয়েশিয়াতে কলিং ভিসায় যেতে চান। তাদের জন্য মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চেক করার নিয়ম সম্পর্কে জানা উচিত। কারণ আপনি যার কাছে থেকে কলিং ভিসা নিবেন সেটি যদি জাল ভিসা হয়ে থাকে তাহলে সেটি আপনার জন্য অনেক বড় ক্ষতি হবে। তাই ভিসা পাওয়া মাত্রই সেটি চেক করে নেওয়া উচিত।

আপনি যদি মালয়েশিয়ার কলিং ভিসা নিয়ে থাকেন তাহলে সেটি চেক করার জন্য আপনাকে একটি ওয়েবসাইটের মধ্যে প্রবেশ করতে হবে। সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার জন্য নিচের এখানে ক্লিক করুন। এখন আপনি যখন এই ওয়েবসাইটে আসবেন তখন আপনাকে এখানে ৩টি তথ্য পূরণ করতে হবে। সেই ৩টি তথ্য হলো
  • Employer Identification Card Number
  • Application Number
  • Company Registration Number
আমরা সকলেই জানি মালয়েশিয়ার কলিং ভিসা গ্রুপ আকারে দেওয়া হয়ে থাকে. তাই আপনি যখন আপনার কলিং ভিসার চেক করতে যাবেন তখন সেখানে অনেকগুলো গ্রুপের নাম দেখতে পাবেন। আপনার ভিসার জন্য যেই গ্রুপ আপনাকে সেই গ্রুপ সিলেক্ট করতে হবে। এছাড়াও এখানে এসে আপনার ভিসার নাম্বার দেখতে পাবেন। আপনাকে সকল তথ্যগুলো সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে। তার জন্য উপরের দেখানো ছবির নির্দেশনা অনুসরণ করুন।

FAQ। মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা

প্রশ্নঃ কিভাবে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক?
উত্তরঃ আপনি যদি পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করতে চান তাহলে আপনাকে যেতে হবে আপনি যেই দেশের ভিসা করবেন সেই দেশের ইমিগ্রেশান ওয়েবসাইটে। সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পরে আপনার পাসপোর্টের নাম্বার এবং আপনার জাতীয়তা দিয়ে দিলেই আপনার ভিসা সম্পর্কিত সকল তথ্য পেয়ে যাবেন।

প্রশ্নঃ সৌদি আরবের ভিসা কিভাবে চেক করে?
উত্তরঃ সৌদি আরবের ভিসা যদি চেক করতে চান তাহলে visa.mofa.gov.sa এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। তারপরে সেখানে আপনার ভিসার অ্যাপ্লিকেশন নাম্বার, আইডি নম্বর ও ক্যাপচা কোড সঠিকভাবে পূরণ করে সার্চ করলেই আপনার ভিসা সম্পর্কিত সকল তথ্যগুলো পেয়ে যাবেন।

প্রশ্নঃ মালয়েশিয়া টুরিস্ট ভিসা কত টাকা লাগে?
উত্তরঃ বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ার টুরিস্ট ভিসার জন্য আবেদন ফি দিতে হয় ৫,৩০০ টাকা। যেটা অফেরতযোগ্য। আর এই ভিসার মেয়াদ থাকে ৩০ দিন পর্যন্ত।

প্রশ্নঃ দুবাইয়ের ভিসা চেক করব কিভাবে?
উত্তরঃ দুবাইয়ের ভিসা চেক করার জন্য আপনাকে প্রথমে যেতে হবে CP Smart Services এই ওয়েবসাইটে। গুগলে লিখে সার্চ করলেই এই ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন। তারপরে সেখানে আপনার ভিসার তথ্যগুলো দিয়ে দিন। তাহলেই আপনার ভিসার সকল তথ্যগুলো এখানে দেখতে পাবেন।

শেষ কথা

আজকে আমরা মালয়েশিয়া ভিসা চেক পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে কিভাবে করতে হয় সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। এছাড়াও আরো অনেক বিষয় আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। আশা করছি আপনি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ার মাধ্যমে এই সকল বিষয়ে বিস্তারিত জানতে এবং বুঝতে পেরেছেন। যদি আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনার বন্ধুদের সাথেও শেয়ার করতে পারেন। এমনই আরো তথ্য নিয়মিত জানার জন্য আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

পেপারস্পট২৪ এর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url