ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান প্রশ্নোত্তর

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র সাধারণ জ্ঞানপ্রিয় পাঠক, আপনি কি ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান প্রশ্নোত্তর গুলো জানতে চাচ্ছেন? তাহলে আপনি এখন সঠিক জায়গাতেই রয়েছেন। কারণ আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান প্রশ্নোত্তরগুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। এছাড়াও ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে আরো অনেক বিস্তারিত আলোচনা তুলে ধরবো। আপনি যদি এই ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে জানতে চান তাহলে অবশ্যই সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান
আপনি যদি আজকের এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলে মেট্রোরেল সম্পর্কে বিস্তারিত, মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান, মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য, মেট্রোরেল স্টেশন কয়টি এবং মেট্রোরেল কত তারিখে চালু হয় এই সকল বিষয়ে বিস্তারিত জানেত পারবেন।

পেজ সূচিপত্রঃ

মেট্রোরেল সম্পর্কে বিস্তারিত

ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞানগুলো জানার পূর্বে সবথেকে ভালো হবে যদি আপনি মেট্রোরেল সম্পর্কে বিস্তারিত জানেন। কেননা আপনি বিস্তারিত জানলে এখান থেকেই আপনি আরো অনেক কিছু গভীরভাবে জানতে পারবেন। তাই আমরা সবার প্রথমে মেট্রোরেল সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো। তাই চলুন আর বেশি দেরি না করে বিস্তারিত আলোচনায় প্রবেশ করা যাক।

মেট্রোরেল বলতে বুঝানো হয়ে থাকে যেই রেল মেট্রোপলিটন এলাকার মধ্য দিয়ে চলাচল করে। তেমনি বাংলাদেশের একটি মেট্রোপলিটন এড়িয়া বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার উত্তরা। যেখানে এই মেট্রোরেল নির্মাণ করা হয়েছে। এটিই হলো বাংলাদেশের মেগা প্রকল্পগুলোর মধ্যে একটি। যার জন্য ঢাকার রাস্তার যানজট আরো কিছুটা কমবে। বর্তমানে ঢাকাতে এখন প্রায় দেড়কোটি মানুষ বসবাস করেন। এই বিশাল জনসংখ্যার মানুষের চাপ নিয়ন্ত্রণ করার জন্যই এই মেগা প্রকল্পটি হাতে নেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেল হলো ঢাকা রাজধানীতে সবথেকে দ্রুততম গণপরিবহন একটি ব্যাবস্থা। বর্তমান সময়ে যেটি বাংলদেশের একটি মেগাপ্রকল্প। এই মেট্ররেলের নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থার নাম হলো ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড। তারাই মূলত এই বাংলাদেশের ঢাকার মেট্রোরেল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। জাইকা ও ডিএমটিসিএল তাদের পরিকল্পণা অনুযায়ি জানায় যে তারা আগামি ২০৩০ সাল নাগাদ ১২৮ কিমি. দৈর্ঘের জন্য মোট ৬টি লাইন নির্মাণ করবে।

যার জন্য এই ঢাকার মেট্রোরেল ৬টি লাইনের মাধ্যমে প্রতিদিন ৪৭ লাখ পর্যন্ত মানুষজন পরিবহন করতে সক্ষম হবে। বাংলাদেশের প্রথম একটি মেট্রোরেল মেগাপ্রকল্পটি ২০২২ সালের ২৮ ডিসেম্বর উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করার মাধ্যমে আংশিকভাবে এই প্রথম যাত্রায় অংশগ্রহণ করেন। পরবর্তিতে ২০২২ সালের ২৯ ডিসেম্বর এটি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়।
বাংলাদেশের ঢাকা মেট্রোরেল এর ইতিহাস খুবই বিরল। বাংলাদেশের মানুষের চলাচলের দুর্ভোগ অতিরিক্ত যানজট কমানোর জন্য বাংলাদেশ সরকার এই উদ্যোগটি গ্রহণ করেন। যার জন্য ২০০৫ সালে বিশ্বব্যাংকের নিকট হতে সহায়তা নিয়ে ঢাকার এসটিপি (স্ট্র্যাটেজিক ট্রান্সপোর্ট প্ল্যান) তৈরি করে নিতে এই মেট্রোরেলের প্রাথমিক কাজ শুরু করা হয়। এর মধ্য দিয়ে এসটিপি প্রণয়ন, অনুমোদন এছাড়াও শহরের পরিবহন ব্যাবস্থা স্বাভাবিক করার জন্য এই পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়।

বাংলাদেশের এই মেট্রোরেল মেগাপ্রকল্পের প্রথম পরিকল্পনায় ৩টি এমআরটি লাইন এবং ৩টি বিআরটি লাইন নির্মাণ করার জন্য প্রস্তাব করা হয়। পরবর্তিতে ২০১৩ সালে এর কিছু কৌশলগত পরিবর্তন নিয়ে এসে ঢাকার উত্তোরায় এর কাজ নির্মাণের পরিকল্পণা চূড়ান্ত করা হয়। পরবর্তি সময়ে ২০১৬ সালে সংশোধন করার মাধ্যমে মেট্রোরেলের লাইন সংখ্যা ৩টি থেকে বৃদ্ধি করে ৫টি করা হয়।

প্রথম পর্যায়ের লাইন হিসেবে মেট্রোরেল নির্মান করার জন্য ঢাকার উত্তোরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২১.২৬ কিমি. দির্ঘ এমআরটি লাইন ৬ কে নির্বাচন করে কাজ করার কথা শুরু করা হয়। এর পরবর্তি সময়ে ২৬ জুন ২০১৬ সালের একটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এমআরটি লাইন-৬ এর নির্মাণ করার জন্য কাজ শুরু করা হয়।

মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান

এতোক্ষণ আমরা সকলেই ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে বিস্তারিত জানলাম। এখন এই পাঠের মধ্যে আমরা জানবো ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান প্রশ্নোত্তর। কেননা বাংলাদেশের এই মেট্রোরেল হলো একটি মেগা প্রকল্প। যার জন্য এই প্রকল্প নিয়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক পরিক্ষায় প্রশ্ন এসে থাকে। তাই আমরা যদি এই ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সকল সাধারণ জ্ঞানগুলো জেনে থাকি তাহলে আমাদের পরিক্ষায় উত্তর দেওয়া সহজ হবে। তাই চলুন আর বেশি কথা না বাড়িয়ে আমরা মেট্রোরেল এর সাধারণ জ্ঞান এবং প্রশ্নোত্তরগুলো জেনে নেই।
মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান
প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রো রেলের দৈর্ঘ্য কত?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রো রেলের দৈর্ঘ্য হলো ২১.২৬ কিলোমিটার।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল প্রকল্পের মোট ব্যয় কত?
উত্তরঃ মেট্রোরেল প্রকল্পের মোট ব্যয় হলো ৩৩ হাজার ৪৭২ কোটি টাকা।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল এর অর্থায়ন করে কে?
উত্তরঃ কোরিয়ার অর্থায়নের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের এই দ্বিতীয় প্রকল্পটি হবে।

প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রো রেলের ব্যবস্থা কে কি বলা হয়?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রো রেলের ব্যবস্থার অফিসিয়াল নামগুলো হলো
  • ম্যাস র‍্যাপিড ট্রানজিট
  • পাসারবাই র‍্যাপিড ট্রানজিট
  • কমিউটার র‍্যাপিড ট্রানজিট
  • প্যাসেঞ্জার র‍্যাপিড ট্রানজিট
প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেলের সরকারি নাম কি?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেলের সরকারি নাম হলো ম্যাস র‍্যাপিড ট্রানজিট [Mass Rapid Transit (MRT)]

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল লাইন 6 এর মালিক কে?
উত্তরঃ মেট্রোরেল লাইন 6 এর মালিক হলো সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।
প্রশ্নঃ মেট্রোরেল কি সরকারি?
উত্তরঃ হ্যা, মেট্রোরেল সরকারি।

প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ উদ্বোধন করা হয় কবে?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ উদ্বোধন করা হয় ২০১৬ সালের ২৬ জুন।

প্রশ্নঃ প্রথম দফায় ঢাকা মেট্রোরেল বা এমআরটি-৬ লাইনের দৈর্ঘ্য কত ছিল?
উত্তরঃ প্রথম দফায় ঢাকা মেট্রোরেল বা এমআরটি-৬ লাইনের দৈর্ঘ্য ছিল ২০.১০ কিমি।

প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পের পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের নাম কী?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পের পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের নাম হলো দিল্লি মেট্রোরেল করপোরেশন।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের প্রথম চালক কে ছিলেন? নারী/পুরুষ
উত্তরঃ নারী।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের প্রথম নারী চলকের নাম কি ছিলো?
উত্তরঃ মরিয়ম আফিজা।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের স্টেশনসংখ্যা প্রথমে কত ছিল?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেলের স্টেশনসংখ্যা প্রথমে ছিলো ১৬টি। পরবর্তিতে এটিকে সংশোধন করে ১৭ টি করা হয়।

প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেল কতদূর পর্যন্ত চলাচল করবে?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেল উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত চলাচল করবে।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল উদ্বোধন করেন কে?
উত্তরঃ মেট্রোরেল উদ্বোধন করেন বর্তমান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেলের সর্বোচ্চ গতিসীমা কত?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেল সর্বোচ্চ গতিসীমা হলো ১১০ কিমি।

প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেলে কতগুলো ট্রেন রয়েছে?
উত্তরঃ ২৪ টি।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের প্রথম যাত্রী হিসেবে কে আরোহন করেন?
উত্তরঃ মেট্রোরেলের প্রথম যাত্রী হিসেবে আরোহন করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল কবে থেকে সাধারণ জনগণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়?
উত্তরঃ ২০২২ সালের ২৯ ডিসেম্বর মেট্রোরেল সাধারণ জনগণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।
প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেল এর পরিচালক কোম্পানির নাম কি?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেল এর পরিচালক কোম্পানির নাম হলো DMTCL

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল এ কোন সংস্থা লোন দিয়েছে?
উত্তরঃ মেট্রোরেল এ জাইকা সংস্থা লোন দিয়েছে।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল এর পিলারের উচ্চতা কত?
উত্তরঃ মেট্রোরেল এর প্রতিটি পিলারের উচ্চতা হলো ১৩ মিটার।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল এর পিলারের ব্যাস কত?
উত্তরঃ মেট্রোরেল এর প্রতিটি পিলারের ব্যাস হলো ০২ মিটার।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের সর্বনিম্ন ভাড়া কত টাকা?
উত্তরঃ ২০ টাকা।

প্রশ্নঃ প্রতি কিলোমিটারে মেট্রোরেলের গড় ভাড়া কত টাকা?
উত্তরঃ ৫ টাকা।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের সর্বোচ্চ ভাড়া কত টাকা?
উত্তরঃ ১০০ টাকা।

প্রশ্নঃ ঢাকা মেট্রোরেল এর প্রতিটি পিলারের দূরত্ব কত?
উত্তরঃ ঢাকা মেট্রোরেল এর প্রতিটি পিলারের দূরত্ব হলো ৩০ কিমি থেকে ৪০ কিমি।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল ঘন্টা প্রতি কত মেগাওয়াট বিদ্যুৎ ব্যয় করবে?
উত্তরঃ ১৩ দশমিক ৪৭ মেগাওয়াট।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল প্রকল্পের প্রথম ব্যয় ধরা হয় কত টাকা?
উত্তরঃ মেট্রোরেল প্রকল্পের প্রথমিক অবস্থায় ব্যয় ধরা হয় ২১ হাজার ৯৬৫ কোটি টাকা।

প্রশ্নঃ পরবর্তি সময়ে মেট্রোরেল প্রকল্পের ব্যয় কত টাকা নির্ধারণ করা হয়?
উত্তরঃ পরবর্তি সময়ে সংশোধনের পরে মেট্রোরেল প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় ৩৩ হাজার ৪৭২ কোটি টাকা।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের প্রতিটি রেল কোথায় থেকে নিয়ে আসা হয়েছে।
উত্তরঃ জাপান থেকে।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের প্রথম উদ্ভোধন বাংলাদেশে কবে করা হয়?
উত্তরঃ ২০২২ সালের ২৮ ডিসেম্বর।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের স্টেশন কত তলার?
উত্তরঃ ৩ তলার।
প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের ট্রেনে কতজন যাত্রী নিতে পারবে?
উত্তরঃ ২৩০৮ জন যাত্রী বহন করতে সক্ষম।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেল উদ্বোধন উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক কত টাকা মূল্যমানের স্মারক নোট চালু করেছে?
উত্তরঃ ৫০ টাকার।

প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের স্টেশন গুলোর নাম কিকি?
উত্তরঃ মেট্রোরেলের স্টেশন গুলোর নাম নিম্নে তুলে ধরা হলো।
  • পল্লবী
  • মিরপুর-১০
  • শাহবাগ
  • মতিঝিল
  • কমলাপুর
  • কাজীপাড়া
  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
  • বাংলাদেশ সচিবালয়
  • শেওড়াপাড়া
  • আগারগাঁও
  • বিজয় সরণি
  • ফার্মগেট
  • উত্তরা উত্তর
  • উত্তরা সেন্টার
  • উত্তরা দক্ষিণ
  • কাওরান বাজার
প্রশ্নঃ মেট্রোরেলের ২১ কিমি পথ পারি দিতে কত সময় লাগবে?
উত্তরঃ ৪০ মিনিট।

প্রশ্নঃ DMTCL কার মালিকানাধীন
উত্তরঃ DMTCL বাংলাদেশ সরকারের মালিকানাধীন।

মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য

ইতিপূর্বে আমরা সকলেই ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান প্রশ্নোত্তর গুলো জেনেছি। এখন এই পাঠের মধ্যে আমরা মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য জানবো। কেননা এটি বাংলাদেশের একটি মেগাপ্রকল্প হিসেবে সকল ধরণের পরিক্ষায় এই সম্পর্কে প্রশ্ন এসে থাকে। তাই আমাদের সকলেরই এই মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য জেনে রাখা উচিত। যাতে করে আপনি পরিক্ষার খাতায় অথবা কেউ জিজ্ঞেস করলে বলতে পারেন। তাই চলুন বন্ধুগণ জেনে নেওয়া যাক।
  • ০১। ঢাকা মেট্রোরেল এর অফিসিয়াল নাম হলো ম্যাস র‍্যাপিড ট্রানজিট। সংক্ষেপে এমআরটি।
  • ০২। ঢাকা মেট্রোরেল এর দৈর্ঘ্য ২১ দশমিক ২৬ কিলোমিটার। যেটি প্রথম উত্তরা হতে মতিঝিল এর দূরত্ব নির্ধারণ করা হয় ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার।
  • ০৩। মেট্রোরেলের স্টেশন সংখ্যা ১৭ টি।
  • ০৪। বাংলাদেশের মেট্রোরেলের জন্য অর্থায়ন করে জাপান ও বাংলাদেশ।
  • ০৫। ঢাকা মেট্রোরেল পরিক্ষামূলক প্রথম চালনা করা হয় ২০২১ সালের ২৯ আগস্ট।
  • ০৬। ঢাকা মেট্রোরেলের প্রথম নারী চালকের নাম হলো মরিয়ম আফিজা।
  • ০৭। ঢাকা মেট্রোরেলের প্রথম কাজের উদ্বোধন করা হয় ২০১৬ সালের ২৬ জুন।
  • ০৮। ঢাকা মেট্রোরেলে প্রকল্পের ব্যয় ৩৩ হাজার ৪৭১ দশমিক ৯৯ কোটি টাকা। যার ৭৫% জাইকা এবং ২৫% বাংলাদেশ।
  • ০৯। প্রাথমিকভাবে ঢাকা মেট্রোরেলের স্টেশন সংখ্যা ১৬ টি নির্ধারণ করা হয়। পরবর্তিতে সেটা সংশোধন করে ১৭টি করা হয়।
  • ১০। ঢাকা মেট্রোরেলের ট্রেন সংখ্যা ২৪ টি।

মেট্রোরেল স্টেশন কয়টি

মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান এর মধ্যে মেট্রোরেল স্টেশন কয়টি এটিও একটি সাধারণ জ্ঞানের প্রশ্ন। আপনি আজকের আর্টিকেলে এসেছেন মানে আপনি এই সম্পর্কে জানেন না। আপনি যদি মেট্রোরেল স্টেশন কয়টি এই সম্পর্কে জেনে না থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে এই সম্পর্কে জানা উচিত। তাই চলুন এটি আমরা জেনে নেই।
মেট্রোরেল স্টেশন কয়টি
২০১৬ সালের ২৬ জুন যখন বাংলাদেশ মেট্রোরেল স্থাপনার জন্য পরিকল্পনা শুরু করেন সেই সময়ে নির্ধারণ করা হয় এই মেট্রোরেলের স্টেশন সংখ্যা হবে ১৬ টি। পরবর্তিতে আবার যখন নতুন করে পরিকল্পণা করা হয় সেই সময়ে জনগণের চলাচলের দূর্ভোগ কমানোর জন্য এই রেললাইন আরো বৃদ্ধি করা হয়। আর সেই সাথে স্টেশন সংখ্যা ও একটি বৃদ্ধি করা হয়। আর তাই বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের মেট্রোরেলের স্টেশন রয়েছে ১৭টি।

লেখকের মন্তব্য

আজকে আমাদের এই আর্টিকেলের প্রধান আলোচনার বিষয় ছিলো ঢাকা মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান প্রশ্নোত্তর। আশা করছি আপনি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ার মাধ্যমে এই বিষয়ে সকল কিছু জানতে পেরেছেন। যদি আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনার বন্ধুদের সাথেও শেয়ার করতে পারেন। আর এমনই আরো তথ্যবহুল আর্টিকেল প্রতিদিন পড়ার জন্য আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

পেপারস্পট২৪ এর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url